Breaking News
Home | সংবাদ | গ্রামগঞ্জের মানুষ প্রধানমন্ত্রীর জন্য ‘দোয়া’ করছেন: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

গ্রামগঞ্জের মানুষ প্রধানমন্ত্রীর জন্য ‘দোয়া’ করছেন: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

চলমান মাদকবিরোধী অভিযানের কারণে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্য গ্রামগঞ্জের মানুষ দু’হাত তুলে দোয়া করছেন বলে দাবি করেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল।

তিনি বলেন, আমি গ্রামেগঞ্জে যাচ্ছি। গ্রামের প্রত্যেক জায়গাতে সবাই দুই হাত তুলে প্রধানমন্ত্রীর জন্য দোয়া করছেন। তারা বলছেন, আমাদের প্রধানমন্ত্রী মাদকের বিরুদ্ধে যে যুদ্ধ ঘোষণা করেছেন সেটা যেন অব্যাহত থাকে। এই অভিযান যেন বন্ধ না হয়।
মন্ত্রী আরও বলেন, চলমান মাদকবিরোধী অভিযানের কারণে বর্তমানে কারাগারে বিপুল পরিমাণ অপরাধী অন্তরীণ। এই মামলাগুলো দ্রুত নিষ্পত্তির জন্য আলাদা আদালত করার প্রয়োজন রয়েছে কি না, সে ব্যাপারে আইন মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে আলোচনা চলছে। আশা করি, খুব শিগগিরই এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত উপনীত হতে পারব।
বুধবার জাতীয় সংসদে প্রশ্নোত্তর পর্বে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

এসএম আবুল কালাম আজাদের সম্পূরক প্রশ্নের জবাবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, সীসাবার নামে নতুন এক মাদকে আমাদের যুবসমাজ আসক্ত। আমাদের যুবক ছেলেমেয়েরা এই সীসাবার গ্রহণ করে। তবে আইনের জটিলতার কারণে আমরা এটা বন্ধ করতে পারছি না। তবে নতুন আইনে সীসাবার নিষিদ্ধ করার জন্য প্রস্তাব করা হয়েছে।
তিনি বলেন, তাছাড়া যেখানেই ক্যাসিনোর সংবাদ পাওয়া যাচ্ছে সেখানেই পুলিশ অভিযান করছে। পুলিশ অভিযান করে বন্ধ করার প্রচেষ্টা নিচ্ছে। তাছাড়া যেখানেই খুনের ঘটনা ঘটছে আমাদের পুলিশ সেখানে আসামীকে শনাক্ত করতে সক্ষম হচ্ছে। আমাদের সব আসামি শনাক্ত হয়েছে।
মাদকবিরোধী অভিযানে কারাগারে ধারণক্ষমতার বেশি আসামি

উম্মে রাজিয়া কাজলের সম্পূরক প্রশ্নের জবাবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জানান, চলমান মাদকবিরোধী অভিযানের কারণে প্রতিদিনই অপরাধীদের ধরা হচ্ছে। দেশের কারাগারের ধারণক্ষমতা যেখানে ৩৫ হাজার সেখানে এই মুহূর্তে ৮০ হাজারের বেশি আসামি কারাগারে রয়েছে। মাদকের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স ঘোষণার পর থেকেই এই ফিগারটা বাড়ছে।

তিনি বলেন, মাদক এমনই এক সর্বনাশা নেশা যাতে আমাদের যুবসমাজ নষ্ট হয়ে যাচ্ছিল। আমাদের প্রধানমন্ত্রী মাদকের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স নীতি ঘোষণা দিয়েছিলেন। সেই নির্দেশনাকে ঘিরেই আমাদের সর্বাত্মক কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়। মাদকের বিরুদ্ধে আমরা সর্বাত্মক প্রচেষ্টা নিয়েছি।
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আমরা যৌথ তালিকা করে দেখছি কারা এর সঙ্গে জড়িত। তালিকার ভিত্তিতেই গ্রেফতার করা হচ্ছে। আর যেখানে অবৈধ ব্যবসা তখনই অবৈধ অস্ত্রের লেনদেন হয়। অবৈধ ব্যবসা ও অপরাধী ধরতে গিয়ে কোন কোন জায়গায় আমাদের নিরাপত্তা বাহিনী বাধার সম্মুখীন হয়। মাদক ব্যবসায়ীরা নিরাপত্তা বাহিনীকে আক্রমণ করে বসে। সেগুলো প্রতিহত করছি।

About admin

Check Also

ত্রাণ মজুত আছে কিন্তু নেওয়ার মতো মানুষ নেই: ত্রাণমন্ত্রী মায়া

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণমন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া বলেছেন,  ১২ মাসের মধ্যে ৭ মাসই দুর্যোগে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *