Breaking News
Home | সংবাদ | ঘুষের টাকা বিকাশেও নেন তিনি
নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার সহকারী পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা সদানন্দ রায়ের বিরুদ্ধে ব্যাপক ঘুষ-দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছে। ঘুষের এ টাকা তিনি শুধু নগদেই নয়, বিকাশেও নেন বলে জানান ভুক্তভোগীরা। দাবিকৃত ঘুষ না দিলেই অধস্তন কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বদলির হুমকি দেন সদানন্দ রায়। এতে অতিষ্ঠ হয়ে সম্প্রতি চার কর্মকর্তা স্বাস্থ্য, শিক্ষা ও পরিবারকল্যাণ বিভাগ এবং স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন

ঘুষের টাকা বিকাশেও নেন তিনি

নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার সহকারী পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা সদানন্দ রায়ের বিরুদ্ধে ব্যাপক ঘুষ-দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছে। ঘুষের এ টাকা তিনি শুধু নগদেই নয়, বিকাশেও নেন বলে জানান ভুক্তভোগীরা।
দাবিকৃত ঘুষ না দিলেই অধস্তন কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বদলির হুমকি দেন সদানন্দ রায়। এতে অতিষ্ঠ হয়ে সম্প্রতি চার কর্মকর্তা স্বাস্থ্য, শিক্ষা ও পরিবারকল্যাণ বিভাগ এবং স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রণালয়ে লিখিত অভিযোগ করেছেন।
অভিযোগে উল্লেখ করা হয়েছে, সহকারী পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা সদানন্দ রায় ২০১০ সালে নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলায় যোগদান করেন। এর পর থেকে মাঠপর্যায়ের কাজ পরিদর্শন করতে গেলে তাকে নগদ অথবা বিকাশে ঘুষের টাকা দিতে হয়।

টাকা না দিলে ঢাকা বিভাগের বাইরে অন্য জেলায় বদলি করে দেয়ার হুমকি দিয়ে আসেন তিনি। এর মধ্যে পরিবার কল্যাণ পরিদর্শিকা সঞ্জু রানী দে ও রাশিদা খানমের কাছ থেকে ভিজিটের ভয় দেখিয়ে একটি সাফারি স্যুট ও ৫ হাজার টাকা নেন সদানন্দ রায়। এ ছাড়া বিভিন্ন কেন্দ্র থেকে মাসিক হারে টাকা আদায় করেন। তা ছাড়া বিএভিএস ক্লিনিক থেকে নবায়নের কথা বলে ২০ হাজার টাকা নেন। শুধু তাই নয়, ভয় দেখিয়ে বিভিন্ন এনজিওর কাছ থেকেও তিনি ঘুষ আদায় করেন বলে অভিযোগ রয়েছে।

অভিযোগে আরও উল্লেখ করা হয়, চাকরি দেয়ার কথা বলে তিনজনের কাছ থেকে ছয় লাখ টাকা নিয়েছেন সদানন্দ রায়। গত উন্নয়ন মেলায় ব্যয় দেখিয়ে উপজেলার ১৯০ কর্মকর্তা-কর্মচারীর কাছ থেকে ৪০০-৫০০ টাকা করে চাঁদা আদায় করেছেন।
এসব অভিযোগ উল্লেখ করে উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা সহকারী শফিউদ্দিন, পরিদর্শিকা মালেহা, পরিদর্শক ওয়াহিদুজ্জামান, সহকারী রেশমা আক্তার বিভিন্ন দফতরে অভিযোগ করেছেন।

এ ছাড়া কর্মকর্তা-কর্মচারীরা জানান, কয়েক দিন ধরে সিলেকশন গ্রেডের নামে তাদের কাছ থেকে ৪০-৫০ হাজার টাকা করে তুলছেন সদানন্দ রায়।
এ ব্যাপারে সদানন্দ রায়কে প্রশ্ন করা হলে তিনি যুগান্তরকে বলেন, আমার বিরুদ্ধে যেসব অভিযোগ করা হয়েছে, তা মোটেও সত্য নয়। আমার ওপরে এখানে আরও তিনজন অফিসার আছেন। যদি কোনো দুর্নীতি করে থাকি, তা হলে আমার ঊর্ধ্বতন অফিসাররা অবশ্যই জানতেন এবং ব্যবস্থা নিতেন।

About admin

Check Also

সড়ক দুর্ঘটনার নর্থ-সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী নিহত

শীর্ষ নিউজ, জামালপুর: ট্রাক মোটরসাইকেলের সংঘর্ষে জামালপুরে নর্থ-সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রের মৃত্যু হয়েছে। নিহত শিক্ষার্থীর নাম ফয়সাল মাহমুদ সুপ্ত (১৯)। তিনি শহরের বকুলতলা এলাকার হস্তশিল্প ব্যবসায়ী নিজাম উদ্দিনের ছেলে এবং নর্থ-সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ইঞ্জিনিয়াররিং বিভাগের পঞ্চম সেমিস্টারের ছাত্র। এ ঘটনায় সিজান নামে আরো একজন আহত হয়েছেন।  গতকাল শুক্রবার দিবাগত রাত সাড়ে ৯

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *