Breaking News
Home | সংবাদ | ত্রাণ মজুত আছে কিন্তু নেওয়ার মতো মানুষ নেই: ত্রাণমন্ত্রী মায়া

ত্রাণ মজুত আছে কিন্তু নেওয়ার মতো মানুষ নেই: ত্রাণমন্ত্রী মায়া

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণমন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া বলেছেন,  ১২ মাসের মধ্যে ৭ মাসই দুর্যোগে থাকি। তবে শেখ হাসিনার সরকারের বলিষ্ঠ নেতৃত্বে এসব প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবিলা করতে সক্ষম হয়েছি। আমাদের কাছে যে পরিমাণ ত্রাণ মজুত আছে কিন্তু তা নেওয়ার মতো লোক নেই।
১৬ জুলাই সোমবার সকালে নীলফামারী জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটির বিশেষ সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন তিনি।
তিনি বলেন, শিলাবৃষ্টি, বন্যা, খরা, পাহাড় ধসে মানুষ বিপদগ্রস্ত হচ্ছে। বজ্রাঘাতে দেশের মানুষ অকালে প্রাণ হারাচ্ছে। এতো প্রাকৃতিক ক্ষতির মধ্যেও রোহিঙ্গা সমস্যা রয়েছে। তাদের স্বাস্থ্যসেবা, খাদ্য, চিকিৎসা, বস্ত্রসহ নানা বিষয়ে সরকার খেয়াল রাখছে।

পানি উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তাদের দৃষ্টি আকর্ষণ করে মন্ত্রী বলেন বলেন, বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ সংস্কার ও রক্ষা করতে পারলে শতকরা ৭৫ ভাগ বন্যা থেকে রক্ষা পাবে এলাকার মানুষ। বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত মানুষ রিলিফ চায় না, তারা বাঁধ রক্ষা চায়। এ ব্যাপারে সজাগ থাকতে হবে।
এ দিনের সভায় নীলফামারীর ডোমার, ডিমলা, জলঢাকা এই তিন উপজেলায় আশ্রয়কেন্দ্র নির্মাণের পরিকল্পনা আছে বলে জানান তিনি।
বন্যার পূর্বপ্রস্ততি হিসেবে ওই তিন উপজেলায় ৬০০ বান্ডিল টেউটিন, দুই হাজার কেজি শুকনা খাবার, ২০০ মেট্রিক টন চাল ও ইঞ্জিনচালিত ৬টি নৌকা বরাদ্দ করেন মন্ত্রী। এছাড়াও ঘড় নির্মাণ বাবদ ১৮ লাখ টাকা দেওয়ার প্রস্তাবনা তৈরি করা হয়।

Share on Tumblr

About admin

Check Also

নববধূ পার্লারে, মাংসের জন্য ভাঙচুরে ব্যস্ত বরপক্ষ

কথা ছিল বরযাত্রায় আসবেন ৩০০ জন। কথা থাকলেও তা মোটেই মানেন নি বরের পরিবার। পাঁচ শতাধিক লোক নিয়ে বিয়ে করতে যান কক্সবাজার সদর সদরের খুরুস্কুল পেশকার পাড়ার আবদু শুক্কুরের ছেলে আলমগীর হোসেন। কনে পার্শ্ববর্তী চৌফলদন্ডী উত্তর পাড়ার প্রবাসী আমির হামজার মেয়ে উম্মে সাদিয়া। বরপক্ষে ছিলেন ৫০০ লোক, সাথে কনে পক্ষের অতিথিও কম নয়! আর এতেই বাঁধে বিপত্তি। বরপক্ষকে খাবার পরিবেশনের সময় মাংসে দ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *