Breaking News
Home | রাজনীতি | এক হোন্ডা, দুই গুণ্ডা, দুই স্টেনগান: আমু
??????????????????????????????????

এক হোন্ডা, দুই গুণ্ডা, দুই স্টেনগান: আমু

আজকে তারা (বিএনপি) নির্বাচনের কথা বলে। নির্বাচন নিয়ে বিএনপি বহু খেলা খেলেছে। জিয়াউর রহমান ক্ষমতায় আসার পর নির্বাচনের নাম হয়েছিল- এক হোন্ডা, দুই গুণ্ডা, দুই স্টেনগান। পোলিং বুথে কোনও ভোটার থাকতো না। ব্যালট বাক্স হাইজ্যাক করে নির্বাচন করতো। তারাই আজ নির্বাচন নিয়ে সততার কথা বলে।
বললেন আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য ও শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু।
বৃহস্পতিবার (১৭ মে) বিকালে রাজধানীর কৃষিবিদ ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে আয়োজিত আলোচনা সভায় এ কথা বলেন তিনি।

আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে এই সভার আয়োজন করা হয়।
শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু বলেন, শেখ হাসিনার ওপরে আল্লার রহমত ছিল, আছে এবং থাকবে। এতে এ জাতির অভ্যুদয় ঘটেছে। বঙ্গবন্ধু বলতেন, এদেশের মত ধর্মপরায়ণ মানুষ পৃথিবীতে আর নাই। আমরা পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে গিয়ে এর সত্যতা পেয়েছি। দেশের মানুষ ধর্ম পালন করে বলেই বঙ্গবন্ধু তাবলিগ জামাতকে জায়গা দিয়েছেন।

তিনি বলেন, আল্লাহর রহমত আছে বলেই শেখ হাসিনাকে বারবার হত্যাচেষ্টা করেও পারে নাই। শেখ হাসিনা আছেন বলেই দেশের সুখ্যাতি বিশ্বজুড়ে ছড়িয়ে পড়েছে। দেশকে আকাশচুম্বী উন্নয়নের পথে নিয়ে গেছেন। যারা দেশের অর্জনকে খাটো করে, তারা দেশ প্রেমিক নয়. দেশদ্রোহী।
আমির হোসেন আমু বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্ন বাস্তবায়ন সম্ভব হয়েছে।

তিনি বলেন, তার (প্রধানমন্ত্রী) মতো মনোবল ও দৃঢ়তা বর্তমান বিশ্বে আর কোন রাষ্ট্রনায়কের মধ্যে নেই। দেশে যা কিছু অর্জন তা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে অর্জিত হয়েছে।
শিল্পমন্ত্রী আরও বলেন, যারা দেশের উন্নয়ন ও অর্জনকে খাটো করতে চায় তাদের দেশদ্রোহী হিসেবে বিবেচনা করে বিচারের আওতায় আনা উচিত।
অনুষ্ঠানে ওবায়দুল কাদের বলেন, খুলনা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে বিএনপি পরাজিত হয়েছে। তাই তাদের খালি কলস। আমাদের ভরা কলস নড়বে না। কিন্তু খালি কলস বেশি নড়ে। খুলনার জনরায়ের প্রতি যারা অশ্রদ্ধা প্রদর্শন করে আগামী জাতীয় নির্বাচনে জনগণ তাদের প্রত্যাখান করবে।

About admin

Check Also

নেতাকর্মীদের আচরণে বিরক্ত হয়ে কাদের বললেন ‘ক্যাডারদের থামান, নইলে নম্বর কাটা’

ঢাকা মহানগরে নির্বাচনী গণসংযোগের সপ্তম এবং শেষ দিনে আজ রোববার উত্তরার আজমপুরে গণসংযোগ ও প্রচারপত্র বিতরণ করেছে আওয়ামী লীগ। নির্বাচনে ভোট চাওয়ার মতো করেই আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের তাঁর বক্তব্য শুরু করেন। বক্তব্যের শুরুতে তিনি সবাইকে সালাম দিয়ে বলেন, ‘কেমন আছেন মুরুব্বিরা? ভাইয়েরা কেমন আছেন? তরুণ ভাইয়েরা কেমন আছ? চারদিকে কী? নৌকার