Breaking News
Home | স্বাধীন | গভীর রাতে পুলিশ ফাঁড়ির সামনে সাবেক মেয়র আরিফ

গভীর রাতে পুলিশ ফাঁড়ির সামনে সাবেক মেয়র আরিফ

সিলেটে আওয়ামীলীগ সমর্থিত মেয়র প্রার্থী বদর উদ্দিন আহমদ কামরানের পোস্টার ছেঁড়ার অভিযোগে বিএনপি প্রার্থী আরিফুল হক চৌধুরীর এক কর্মীকে আটক করে পুলিশে দেওয়া হয়েছে। তাকে ছাড়িয়ে নিতে রাতেই আরিফুল হক অবস্থান নেন পুলিশ ফাঁড়ির সামনে।
জানা যায়, বুধবার রাত সাড়ে ১২টার দিকে কামরান অনুসারীরা নগরীর বন্দরবাজার থেকে লোকমান নামের ওই যুবককে আটক করে ফাঁড়িতে সোপর্দ করে।খবর পেয়ে দলীয় নেতাকর্মী নিয়ে লোকমানকে ছাড়িয়ে নিতে গভীর রাতে আরিফুল হক বন্দরবাজার পুলিশ ফাঁড়ির সামনে অবস্থান নেন। পরে পুলিশ লোকমানকে ছেড়ে দেয়।

সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের কোতোয়ালি থানার ওসি মোশাররফ হোসেন পরিবর্তন ডটকমকে বলেন, পোষ্টার ছেঁড়ার অভিযোগে একজনকে পুলিশে দেয় কয়েকজন যুবক।খবর পেয়ে সদ্য সাবেক মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী প্রতিদ্বন্দ্বী আরেক সাবেক মেয়র বদর উদ্দিন আহমদ কামরানের সাথে আলাপ করেন। লোকমানকে নিজের কর্মী দাবি করে পুলিশের সাথেও কথা বলেন। এদিকে সাবেক মেয়র বদর উদ্দিন আহমদ কামরান বিষয়টি ভুল বুঝাবুঝি বলে পুলিশকে জানালে সমাধান হয়। উৎস- পরিবর্তন
তৃপ্তি নিয়ে রাজনীতি থেকে অবসরে যেতে পারব: অর্থমন্ত্রী
অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত বলেছেন, ‘যেভাবে দেশে উন্নয়ন হচ্ছে ভবিষ্যৎ প্রজন্মের নিরাশ হওয়ার কোনো কারণ নেই। এটা আমার জন্যও অনেক বড় তৃপ্তি। আমার তো এখন চলে যাওয়ার সময়। চলে যাওয়ার সময় এমন তৃপ্তি নিয়ে যাওয়া- এটা ২০০১ সালে যখন ঠিক করলাম (রাজনীতি থেকে) রিটায়ার্ড করবো। তখন এমন তৃপ্তি ছিল না। এখন যে কোনো মুহূর্তে রিটায়ার্ড করতে কোনো অসুবিধা নেই। কারণ আমার বদ্ধমূল ধারণা- দেশটা এগিয়ে যাচ্ছে, এগিয়ে যেতেই থাকবে।’

বুধবার বিকেলে সিরডাপ মিলনায়তনে বাংলাদেশ স্টাডি ট্রাস্টের আয়োজনে ‘আগামীর সিলেট- উন্নয়ন প্রাপ্তি ও প্রত্যাশা’ শীর্ষক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি।তিনি বলেন, ১০ বছরে যে উন্নয়ন সাধিত হয়েছে, তা অসাধারণ। আর এই উন্নয়ন কয়েকটি বিষয়ের সমন্বয়ে হয়েছে। প্রথমত, শেখ হাসিনার অত্যন্ত উপযোগী ও গণমুখী প্রগতিশীল নেতৃত্বের কারণে সম্ভব হয়েছে। শেখ হাসিনা বাংলাদেশের জন্য গৌরবের বিষয়। এমনকি তিনি এখন বিশ্ব নেতৃত্বের শীর্ষ স্থানে আরোহন করছেন। এটিও আমাদের দেশের জন্য মঙ্গলকর।

দ্বিতীয় কারণ হচ্ছে, আমরা যেসব উদ্যোগ গ্রহণ করেছি, সেগুলো বাস্তবায়ন করা সম্ভব হয়েছে। যেমন ২০০৯ সালে যখন ক্ষমতায় আসি, তখন সারা বিশ্বে রফতানি বাজারে সমস্যা। তখন আমরা কিভাবে প্রবৃদ্ধি বাড়াতে পারি এই চিন্তায় ছিলাম। তখন আমরা দেশের ডমেস্টিক ডিমান্ড বাড়ানোর উদ্যোগ নিলাম। আমরা কৃষি প্রধান দেশ হলেও অন্য দেশের মুখপেক্ষি ছিলাম। তখন আমাদের ডমেস্টিক ডিমান্ড খুবই কার্যকরী হয়েছে।
খবরটি শেয়ার করুন

About admin

Check Also

মা’র কাছে শিখেছিলাম, কাউরে ভাতের খোটা দিতে নাই

রাতে ভাল ঘুম হয় নাই। প্রায় সারা রাত জেগে ছিলাম। এটা শরীর খারাপের জন্য হতে পারে। কয়েকদিন ধরেই সিজনাল অসুখ-বিসুখে ভুগছি। কিন্তু সারারাত ধরেই একটা বিষয় মাথার মধ্যে ঘুরেছে। কোনমতেই সেটা হজম হচ্ছে না।যখনই মনে পড়ছে, তখনই শরীর গুলিয়ে উঠছে। সম্ভব হলে দীর্ঘ সময় ধরে যদি বমি করে সব অপমান ঝেড়ে ফেলতে পারতাম? আমি এই দেশের আশীর্বাদপুষ্ট মানুষগুলোর একজন। সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে শুরু ক

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *