Breaking News
Home | সংবাদ | জাবি উপাচার্যকে কার্যালয়ে প্রবেশ করতে দিল না আওয়ামীপন্থীরা

জাবি উপাচার্যকে কার্যালয়ে প্রবেশ করতে দিল না আওয়ামীপন্থীরা

ছবি: যুগান্তর
জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে উপাচার্যের কার্যালয় আবারও ঘেরাও করেছে আওয়ামীপন্থী ও উপাচার্য বিরোধী শিক্ষকদের একাংশ।
রোববার সকাল সাড়ে ৮টা থেকে বিকাল তিনটা পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের পুরাতন প্রশাসনিক ভবনের সামনে ব্যানার ঝুলিয়ে অবস্থান নেয় ‘বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজ’।
ফলে কার্যালয়ে প্রবেশ করতে পারেনি উপাচার্য। কার্যত প্রশাসনিক কাজে স্থবিরতা দেখা দেয়।

এদিকে পূর্ব নির্ধারিত পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের ৪টি অস্থায়ী প্রভাষক পদে নিয়োগের সিলেকশন বোর্ড স্থগিত করা হয়। সকাল থেকে বিকাল পর্যন্ত অপেক্ষা করার পর ভাইভা অনুষ্ঠিত না হওয়ায় ভোগান্তিতে পড়েন ভাইভা দিতে আসা প্রার্থীরা।
বিকাল তিনটায় ডেপুটি রেজিস্টার (টিচিং) মুহাম্মাদ আলী ভাইভা স্থগিতের কথা জানালে ক্ষোভ প্রকাশ করে চাকরিপ্রার্থীরা।
এ সময় জাপান থেকে আসা চাকরিপ্রার্থী মাসুদুর রহমান লিখন বলেন, ‘শিক্ষকদের অভ্যন্তরীণ কোন্দলে পূর্ব নির্ধারিত বোর্ড স্থগিত হওয়ায় আমরা মর্মাহত হয়েছি। আমাদের আগে থেকে জানিয়ে দিলে বিদেশ থেকে এসে হয়রানির ও ভোগান্তির শিকার হওয়া লাগতো না।’
লিখনের মতো অস্ট্রেলিয়াসহ বেশ কয়েকজন বিদেশ থেকে ভাইভা দিতে এসেছিলেন বলেও জানা গেছে।

এ বিষয়ে উপাচার্য অধ্যাপক ড. ফারজানা ইসলাম যুগান্তরকে বলেন, ‘অবরোধকারী শিক্ষকরা পূর্ব ঘোষণা ছাড়া তাৎক্ষণিক সিদ্ধান্তে উদ্দেশ্যপ্রণোদিত ভাবে সিলেকশন বোর্ড স্থগিত করেছে। এতে চাকরিপ্রার্থীসহ এক্সপার্টরাও (অন্য বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আসা বিশেষজ্ঞরা) বিরক্ত ও অপমানিত হয়েছেন। যা আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাবমূর্তি চরমভাবে বিনষ্ট হয়েছে। এমন কর্মকাণ্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষাকদের দ্বারা হওয়া উচিত নয় বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

এর আগে এক সংবাদ সম্মেলনে নতুন সিন্ডিকেট সম্পন্ন না হওয়া পর্যন্ত সব ধরনের নতুন নিয়োগ প্রতিহত করার ঘোষণা দেন উপাচার্যবিরোধী শিক্ষকদের সংগঠন ‘বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজ’।
তার অংশ হিসেবে এই ঘেরাও কর্মসূচি পালিত হয়েছে বলে জানান সংগঠনটির সম্পাদক ও মুখপাত্র সহযোগী অধ্যাপক ফরিদ আহমেদ।
তিনি বলেন, ‘চার মাস যাবত সিন্ডিকেট সভা আটকে আছে। ফলে শিক্ষকদের পদোন্নতি, শিক্ষার্থীদের সনদ ও ডিগ্রিসহ অনেক গুরুত্বপূর্ণ বিষয় স্থগিত রয়েছে। স্থগিত বিষয়ে সমাধান না করে নতুন নিয়োগ দেওয়া অনুচিত’

এর আগে শনিবার সন্ধ্যায় নিহত দুই শিক্ষার্থীদের স্মরণে আলোক মিছিল ও মোমবাতি প্রজ্জ্বলন করে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা।
প্রসঙ্গত, গত বছরের ২৬ মে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কে দুর্ঘটনার শিকার হয়ে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ৩য় বর্ষের দুই শিক্ষার্থী নিহত হয়। এতে শিক্ষার্থীরা বিক্ষুব্ধ হয়ে সড়ক দুর্ঘটনার বিচার, অরক্ষিত মহাসড়কের নিরাপত্তা নিশ্চিতসহ কয়েকটি দাবিতে ঢাকা-আরিচা মহাসড়ক অবরোধ করে। এক পর্যায়ে পুলিশ অবরোধকারী শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা চালায়।

About admin

Check Also

উত্তরায় ৯নং সেক্টরে পুলিশ কর্মকর্তার ‘আত্মহত্যা’

রাজধানীর উত্তরার ৯নং সেক্টরের একটি বাসা থেকে এক পুলিশ কর্মকর্তার লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। নিহত …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *